Students Save 30%! Learn & create with unlimited courses & creative assets Students Save 30%! Save Now
Advertisement
  1. Business
  2. eCommerce
Business

কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে আপনার প্রথম ইকমার্স ওয়েবসাইট তৈরি করবেন

by
Length:LongLanguages:

Bengali (বাংলা) translation by Shakila Humaira (you can also view the original English article)

একটি অনলাইন স্টোর আপনার সম্ভাব্য ক্রেতাদের কাছে আপনার পণ্য তুলে ধরার একটি অসাধারণ মাধ্যম হতে পারে। যদিও অর্ডার পূর্ণ করা, আয়ব্যয়ের হিসাব নিকাশ করা এবং আপনার স্টোরের মার্কেটিং করার তুলনায় এমন একটি ওয়েবসাইট তৈরি করা বেশ সময়সাপেক্ষ কাজ।

এ কারণেই, আপনার ইকমার্স প্লাটফর্মটি যাতে সহজেই ব্যবহার ও বজায় রাখা যায় এমন হওয়া উচিৎ। এই ক্ষেত্রে ওয়ার্ডপ্রেস সবচেয়ে উপযুক্ত কারণ, এটা দিয়ে আপনি যেকোনোও ওয়েবসাইট তৈরি ও ব্যবহার করতে পারবেন, এমনকি একেবারে নতুনদের জন্যও এটা বেশ সহজ।

ওয়ার্ডপ্রেসে যেকোনো ধরণের ওয়েবসাইটের জন্য প্রায় হাজারেরও বেশি থিম আছে, যে কারণে এটা বেশির ভাগ ইকমার্স মালিকদের প্রথম পছন্দ।

এই পোস্টে, আমরা কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করবেন তা নিয়ে আলোচনা করবো। এখানে আপনি জানবেন, কিভাবে সঠিক থিম নির্বাচন করতে হয়। এছাড়াও আমরা আপনাকে দেখাবো কিভাবে অনলাইন স্টোর সেটআপ এবং পরিচালনা করতে হয়।

ইকমার্স স্টোরের জন্য কেন ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করবেন?

ওয়ার্ডপ্রেসে অসংখ্য থিম আছে যা থেকে আপনি আপনার পছন্দমত থিম বেছে নিতে পারেন, এছাড়াও আছে হাজারেরও বেশি প্লাগিন যা আপনার ওয়েবসাইটে বাড়তি ফাংশনালিটি যুক্ত করতে সক্ষম। তথাপি, এমন অনেক প্লাগিন আছে, যা দিয়ে আপনার ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইটটিকে একটি অনলাইন স্টোরে রূপান্তর করতে পারেন।

এই উদ্দেশ্যে বানানো সবচেয়ে জনপ্রিয় প্লাগিন হচ্ছে উকমার্স। এটা দিয়ে আপনি ডিজিটাল ও ফিজিক্যাল উভয় ধরনের পণ্যই বিক্রি করতে পারবেন। উকমারসে প্রচলিত ও অপ্রচলিত বিভিন্ন ধরনের অর্থ প্রদানের মাধ্যম আছে এবং এটাতে বেশ কিছু এক্সটেনশন আছে যা দিয়ে আপনি অর্ডারসমূহ আপনার একাউন্টিং সফটওয়্যারে নিয়ে যেতে পারবেন, এক্সট্রা শিপিং মেথড অফার করতে পারবেন, ইনভয়েস এবং শিপিং লেবেলসমূহ প্রিন্ট করতে পারবেন, এবং যেসব কাস্টমার তাঁদের শিপিং কার্ট পরিত্যাগ করেছে তাঁদের কাছে স্বয়ংক্রিয় মেইল পাঠাতে পারবেন, এবং এছাড়াও আরও অনেক কিছু করতে পারবেন।

WooCommerce WordPress plugin

কিভাবে একটি ওয়ার্ডপ্রেস ইকমারস থিম বেছে নিবেন

একটি আকর্ষণীয় ওয়েবসাইট অনেক ভিজিটরকে আকৃষ্ট করে তাঁদেরকে আপনার নিয়মিত গ্রাহকে পরিণত হতে সাহায্য করবে। যদিও ওয়ার্ডপ্রেসের ক্ষেত্রে ডিজাইনই একমাত্র মনযোগের বিষয় নয়। এখানে বেশ কিছু বিষয় আছে যা আপনাকে দেখতে হবে।

১। সঠিক ফিচারসহ একটি থিম বেছে নিন

যদিও বেশীরভাগ ইকমারস ফাংশনালিটি আসলে প্লাগিন থেকে আসে। তবে থিমের বেশ কিছু ফিচার আছে যা থাকলে আপনার গ্রাহকদের অভিজ্ঞতাকে উন্নত করবে। বিশেষ করে যেসব থিমে নিন্মোক্ত ফিচারগুলো থাকে, সেগুলো বেছে নিবেন:

  • মেগামেনু। মেগামেনু আসলে একটি ড্রপডাউন মেনু হিসেবে কাজ করে যাতে মাউস নিয়ে গেলে অন্যান্য পেইজসমুহ দেখা যায়। এটা দিয়ে আপনার ন্যাভিগেশন মেনু সংগঠিত করতে এবং ভিজিটরদের জন্য বাড়তি চাপ সৃষ্টি না করে প্রোডাক্ট ক্যাটাগরি এবং পেইজসমুহ সাজানো যায়।
  • কুইক ভিউ। কোনও পণ্যে ক্লিক করে তার বিবরণ তৎক্ষণাৎ দেখার সুবিধা থাকলে অথবা কার্টে যোগ করার ব্যবস্থা থাকলে আপনার ভিজিটরদের অযথা কোনও ক্লিক করতে হবে না এবং এতে কনভার্সন রেট বাড়বে।
  • ক্যাটালগ মোড। একইভাবে আপনি যদি ক্যাটালগ মোডসহ কোনও থিম বেছে নেন, তাহলে আপনার ভিজিটররা অপ্রয়োজনীয় ক্যাটাগরি ও পেইজে ক্লিক না করে খুব সহজেই তাঁদের পছন্দের পণ্যটি খুঁজে পাবে।

ইকমারস ওয়ার্ডপ্রেস থিমের জন্য এনভেটোতে অনেক ধরনের বিকল্প আছে।

২। ফাঁকা স্থান উপেক্ষা করবেন না

যদি সম্ভব হয়, তাহলে এমন একটি থিম বেছে নিন, যাতে দুটি আইটেমের মাঝখানে অনেক বেশী ফাঁকা জায়গা থাকে। এটা আপনার গ্রাহককে আপনার স্টোর থেকে খুব সহজেই তাঁদের পছন্দের পণ্য খুঁজে বের করতে সাহায্য করবে।

৩। আপনার থিম সহজেই কাস্টমাইজযোগ্য কিনা তা নিশ্চিত করুন

আপনার থিমটি আপনার ব্র্যান্ডের সংগে মানানসইভাবে কাস্টমাইজ করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। যেসব থিমে থিম সেটিংস প্যানেল অথবা কাস্টমাইজার থাকে, সেসব থিমে কোনও কোড পরিবর্তন না করেই আপনি রং, ফন্ট এবং অন্যান্য বিষয়গুলো পরিবর্তন করতে পারেন। যদি আপনি এমন একটি থিম বেছে নেন, যাতে পেইজ বিল্ডার ইন্টগ্রেশন আছে, তাহলে আপনি খুব সহজেই আপনার পেইজের লেআউট বা বহির্বিন্যাসও পরিবর্তন করতে সক্ষম হবেন।

Theme settings
থিম সেটিংস

কিভাবে আপনার ওয়ার্ডপ্রেস ইকমার্স ওয়েবসাইট চালু করবেন

ওয়ার্ডপ্রেসে ইকমারস সাইট বানাতে পণ্য যোগ করা এবং থিম সেটিংস ঠিক করার আগে আপনাকে কিছু টেকনিক্যাল বিষয়ের ব্যাপারে যত্ন নিতে হবে। শুরুতে আপনাকে একটি ডোমেইন নাম কিনতে হবে। এছাড়াও একটি হোস্টিং প্ল্যান, আপনার ওয়েবসাইটের জন্য একটি থিম কিনতে হবে এবং আপনার কনটেন্ট বা বিষয়বস্তু যেমন, ইমেজ ও বিবরণ তৈরি করতে হবে।

১. একটি ডোমেন নাম

ডোমেন নামের মাধ্যমে আপনার ভিজিটররা আপনাকে ওয়েবে খুঁজে পাবে। যদি আপনার এর মধ্যেই কোনও ফিজিক্যাল স্টোর থাকে, তবে ডোমেন নাম হিসেবে আপনার স্টোরের নাম ব্যবহার করতে পারেন। অন্যথায়, আপনি যে পণ্য বিক্রি করছেন তার নাম অনুসারে আপনার স্টোরের নাম দিতে পারেন অথবা কোনও একটি জেনেরিক নাম বেছে নিন, যদি ভবিষ্যতে আপনি অন্যান্য পণ্যের সংখ্যা বাড়াতে চান।

২। একটি হোস্টিং প্লান

ডোমেন নাম বেছে নেয়ার পর, আপনাকে একটি হোস্টিং প্লান বেছে নিতে হবে যাতে মানুষ সহজেই আপনার সাইটে প্রবেশ করতে পারে। এ ক্ষেত্রে সস্তা, শেয়ারড প্লান থেকে শুরু করে বেশ দামী ও ম্যানেজড ওয়ার্ডপ্রেস হোস্টিং প্লানসহ অনেক ধরনের অপশন পাবেন।

৩। একটি ওয়ার্ডপ্রেস থিম 

আগেই বলা হয়েছে ওয়ার্ডপ্রেসে বিভিন্ন ধরনের পণ্য বা নিশের জন্য উচ্চ মানের থিমের কোনও কমতি নেই। যদিও ফ্রি থিম দিয়ে কাজ চালানো যায়, কিন্তু এগুলোতে আপনি থিম অথোরের কাছ থেকে কোনও সাপোর্ট পাবেন না এবং প্রিমিয়াম থিমের মত ঘন ঘন আপডেট করা হয় না। আপনি যদি আপনার ওয়েবসাইটকে ব্যবহার-বান্ধব এবং নিরাপদ রাখতে চান তবে অবশ্যই থিমটিকে হালনাগাদ রাখা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

সৌভাগ্যের ব্যপার, যে এনভেটো এলিমেন্টের মত মার্কেটপ্লেস আছে, যেখান থেকে এককালীন সাশ্রয়ী মাসিক অথবা বাৎসরিক ফী-তে সাবস্ক্রিপশন করে আপনি অসংখ্য ওয়ার্ডপ্রেস থিম ডাউনলোড করতে পারবেন। মানে হচ্ছে আপনার যত খুশি থিম পরিবর্তন করতে পারবেন। এবং আপনার পছন্দমত কোনও থিম পেলে তা কিনে যিপ ফাইলটি কম্পিউটারে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। এছাড়াও আপনি উকমারসের জন্য অসংখ্য থিম পাবেন যেগুলো নিয়মিত আপডেট করা হয় এবং আপনি ছয়মাসের জন্য থিম ফরেস্টে এই থিমের অথোরের কাছ থেকে সাপোর্ট পাবেন।

৪। কনটেন্ট এবং ছবি

পরিশেষে, আপনার পণ্যের জন্য ইমেজ এবং পণ্যের বিবরণ তৈরি করতে হবে। যাতে আপনার থিম এবং উকমারস প্লাগিন ইন্সটল করার পর কেবল কপি আর পেস্ট করলেই হয় যায়। এতে করে খুব দ্রুত ওয়েবসাইট সেটআপ করা যাবে এবং আপনার ওয়েবসাইট সেটআপ করে লাঞ্চ করার প্রক্রিয়া মাত্র এক ঘণ্টার মধ্যেই শেষ করতে পারবেন। আপনার সাইটের অন্যান্য পাতা, যেমন আমাদের সম্পর্কে, শর্তাবলী, আপনার ঠিকানা এবং প্রয়োজনীয় অন্যান্য পাতাও তৈরি করতে ভুলবেন না।

ওয়ার্ডপ্রেস এবং উকমারস দিয়ে শুরু করা

সবকিছু তৈরি করেছেন, এবার সাইট তৈরি করার পালা। থিম কাস্টমাইজ ও কোনও কনটেন্ট আমদানী করার আগে আপনাকে প্রথমে ওয়ার্ডপ্রেস, উকমারস, আপনার থিম এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় প্লাগিনসমূহ ইন্সটল করতে হবে।

এই টিউটোরিয়ালের জন্য আমরা লোটাস থিম ব্যবহার করবো। লোটাস থিমে অসংখ্য খালি স্থানসহ আধুনিক ও রেস্পন্সিভ ডিজাইন আছে এবং এতে এক ক্লিকেই ডেমো কনটেন্টসমূহ আমদানী করা যায়, যাতে আপনি খুব সহজেই আপনার সাইটটি সেটআপ করতে পারেন। এতে আরও আছে ভিজুয়াল কম্পোজার বিল্ডার এবং রেভুল্যশন স্লাইডার যা দিয়ে আপনি খুব সহজেই লেআউট সম্পাদনা করে আপনার পণ্যের জন্য জমকালো স্লাইড সমূহ তৈরি করতে পারবেন।

তাহলে এবার শুরু করা যাক:

১। ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করুন

প্রথম ধাপ হচ্ছে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করা। হোস্টীং প্ল্যান কেনার পর, আপনার হোস্টীং কোম্পানী আপনাকে হোস্টীং আকাঊণ্টের ড্যাশবোর্ডের লিংক প্রদান করবে, যেখান থেকে আপনি ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করতে পারবেন।

ড্যাশবোর্ডে লগইন করার পর, WordPress Install, One-click Installers, Softaculous Installers, এই ধরনের লেখাযুক্ত সেকশনটি খুঁজে বের করুন। ওয়ার্ডপ্রেস আইকন খুঁজে বের করে তা ক্লিক করুন এবং যে নির্দেশনা দেয়া হয়, তা অনুসরণ করুন।  

এটা এমন একটি স্ক্রিন আনবে, যেখানে আপনি আপনার সাইটের নাম এবং বিবরণ, আপনার পছন্দের ইউজারনেম এবং পাসওয়ার্ড এবং আপনার ইমেল ঠিকানা প্রদান করতে বলা হবে। আপনার তথ্যসমূহ দিয়ে এই খালি স্থানগুলো পূর্ণ করুন এবং ইন্সটল বোতামটি চাপুন।

ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল হয়ে গেলে, আপনি আপনার ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবোর্ডে লগ-ইন করতে পারবেন। yoursitename.com/wp-admin এ ভিজিট করুন তাহলেই হবে। (yoursitename.com এর স্থলে আপনার ডোমেন নাম ব্যবহার করুন)। এবার আগে থেকে তৈরি করে রাখা ইউজারনেম এবং পাসওয়ার্ড প্রবেশ করান।

২। আপনার ওয়ার্ডপ্রেস থিম ইনস্টল করুন

আপনার ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবোর্ড থেকে Appearance > Themes > Add new তে যান। তারপর Upload Theme এ ক্লিক করুন।

ডাউনলোড করা জিপ ফাইলটি খুঁজে বের করুন যাতে থিম ফাইলসমূহ আছে এবং তা আপলোড করুন। ইন্সটল করা হয়ে গেলে Activate ক্লিক করুন।

৩। দরকারী প্লাগিনসমূহ ইন্সটল করুন

Required plugins
দরকারী প্লাগিনসমূহ

থিমটি ইন্সটল এবং সচল করার পর আপনার ড্যাশবোর্ডে একটি নোটিফিকেশন দেখতে পাবেন যাতে এই থিমের কার্যকারিতার জন্য প্রয়োজনীয় প্লাগিনসমূহ ইন্সটল করতে বলা হবে। Begin installing plugins লিঙ্কে ক্লিক করুন যা আপনাকে সরাসরি ইন্সটলেশন স্ক্রিনে নিয়ে যাবে।

ড্রপ ডাউন মেনু থেকে সবগুলো প্লাগিন সিলেক্ট করুন, এবং Install বোতামে ক্লিক করে প্রক্রিয়াটি শেষ হতে দিন।

৪। উকমারস ইনস্টল করুন

শেষ ধাপে আপনার সাইটে ইকমার্স কার্যকারিতা সক্রিয় করতে WooCommerce ইনস্টল করতে হবে। আপনার ড্যাশবোর্ড থেকে Plugins > Add New তে যান। উকমারস খুঁজে বের করে তা ইন্সটল ও সক্রিয় করুন।

আপনাকে প্লাগিন সেটআপ প্রক্রিয়ার ভিতর দিয়ে যেতে হবে, যাতে আপনি প্রয়োজনীয় পেইজসমূহ তৈরি করতে পারবেন এবং আপনার লোকেশন, কারেন্সি এবং পেমেন্ট মেথড বেছে নিতে পারবেন।

প্রযুক্তিগত খুঁটিনাটি বিষয়াদি ঠিক করার পর, এবার আপনি আপনার কন্টেন্ট যুক্ত করতে ও থিম সেটআপ করতে পারবেন।

কিভাবে আপনার থিম সেটআপ ও কাস্টমাইজ করবেন

থিম সেটআপ করার সবচেয়ে সহজ পদ্ধতি হচ্ছে ডেমো কণ্টেন্ট সেটআপ করা। বেশিরভাগ আধুনিক থিমেই আপনি এক ক্লিকে ডামি ছবি, পোস্ট এবং পেইজসমুহ আমদানি করতে পারবেন। কনটেন্ট আমদানি করা হয়ে গেলে আপনি থিম সেটিংস থেকে রং, ফন্ট এবং অন্যান্য বিষয়াদী পরিবর্তন করতে পারবেন।

১। ডেমো কন্টেন্ট আমদানী করুন

ডেমো কণ্টেন্ট আমদানী করার সবচেয়ে ভালো দিক হচ্ছে, আপনার থিম ডেমোর মত করে তৈরি করতে সব পেইজ, পোস্ট, ইমেজ, উইজেট সেটিংস এবং অন্যান্য বিষয়গুলো আমদানী করবে। লোটাস থিমের ক্ষেত্রে, এটা স্যাম্পল পণ্যসহ শপ পেইজ আমদানী করবে। তাই আপনাকে কেবল বাকি পেইজগুলো আপনার নিজস্ব কনটেন্ট দিয়ে সাজিয়ে নিলেই হবে।  

Importing demo content
ডেমো কনটেন্ট আমদানি করা হচ্ছে

আমদানী শুরু করতে Appearance > Import Demo Data তে যান, তারপর নীল ডেমো বোতামটি চাপুন। আপনার নিজস্ব কন্টেন্ট যোগ করতে ও থিমের চেহারা পাল্টাতে প্রক্রিয়াটি শেষ হওয়ার জন্য অপেক্ষা করুন।  

২। ডেমো কনটেন্ট প্রতিস্থাপন করুন

চলুন এবার ডেমো কনটেন্ট প্রতিস্থাপন করা যাক। আপনার ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবোর্ড থেকে, পেইজে যান এবং যে পৃষ্ঠায় আপনি কাজ করতে চান সেই পৃষ্ঠার নিচে সম্পাদনা বোতাম ক্লিক করুন । এই উদাহরণে, আমরা ফুল স্ক্রিন স্লাইডার পেজ সম্পাদনা করেছি।

যেহেতু, লোটাস থিমে ভিজুয়াল কম্পোজার বিল্ডার ব্যবহার করা হয়েছে, তাই Edit with Visual Composer বোতামটি চাপুন। পেজ এডিটর লোড হওয়ার পর, আপনি লেআউট পরিবর্তন, অতিরিক্ত মডিউল জুড়তে এবং আরও অনেক কিছু করতে সমর্থ হবেন।

visual editor
ভিজুয়াল এডিটর

আপনার পৃষ্ঠায় থাকা উপাদান সমূহ সম্পাদনা করতে, পেন্সিল আইকনে ক্লিক করুন এবং আপনার পছন্দ অনুযায়ী মানানসই সেটিংস সমন্বয় করে নিন। এছাড়াও আপনি পাঠ্য বাক্স, বোতাম, আইকন, ভিডিও, ছবি এবং আরো অনেক ধরনের অতিরিক্ত উপাদান যোগ করতে পারেন।

Adding elements
উপাদান যোগ করা হচ্ছে

৩। নিজের পণ্য যোগ করুন

নিজের পণ্য জুড়তে, আপনার ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবোর্ড থেকে Products > All products এ যান। প্রতিটি পণ্যের নিচে সম্পাদনা লিংকটি ক্লিক করুন এবং আপনার নিজস্ব বর্ণনা, মূল্য এবং চিত্রের সাথে আপনার কনটেন্ট প্রতিস্থাপন করুন৷ আপনার যদি ডেমোতে থাকা পণ্যের চেয়ে বেশী পণ্য থাকে, তাহলে Products > Add New তে যান এবং পণ্যের বিবরণ, ছবি এবং সঠিক মূল্য বসান। তারপর তা প্রকাশ করুন।  

Adding products
পণ্য যোগ করা হচ্ছে

৪। থিমের চেহারা কাস্টমাইজ করুন

যখন আপনি পৃষ্ঠা এবংপৃষ্ঠা এবং পণ্য সেট করা হয়ে গেলে, তারপর Appearance > Customize এ যান এবং আপনার পছন্দমত সেটিংস পরিবর্তন করে নিন। আপনি এবার আপনার নিজস্ব লোগো এবং সাইট আইডেন্টিটি আইকন আপলোড করতে পারেন, আপনার ফন্ট পরিবর্তন করতে পারেন, আপনার হোমাপেইজ কনফিগারসহ আরও অনেক কিছু করতে পারেন।

৫ টি দরকারী উকমারস এক্সটেনশন যা আপনার স্টোরকে সঠিক ভাবে চালাতে সাহায্য করবে

আগেই উল্লেখ করা হয়েছে যে, এমন অনেক এক্সটেনশন আছে যা দিয়ে আপনি আপনার অনলাইন স্টোরটি আরও বেশী স্বয়ংসম্পূর্ণ করে তুলতে পারবেন। এখানে এমন পাঁচটি দরকারী এক্সটেনশন দেয়া হলো যা আপনার স্টোরকে সহজেই চালাতে সাহায্য করবেঃ

১। ডব্লিউপি ফ্লাট ভিজুয়াল চ্যাট

WP Flat Visual Chat
ডব্লিউপি ফ্লাট ভিজুয়াল চ্যাট

অনলাইন স্টোরের ক্ষেত্রে আস্থাভাজন হওয়া গুরুত্বপূর্ণ। আপনার পণ্য অথবা শিপিং পলিসি সম্পর্কে আপনার গ্রাহকের মনে প্রশ্ন জাগতে পারে। কিন্তু তাঁরা যদি এসব প্রশ্নের উত্তর না পায়, তাহলে শেষপর্যন্ত আপনার সাইটটি পরিত্যাগ করতে পারে। লাইভ চ্যাট ফাংশন যোগ করার মাধ্যমে, তাঁরা সাথে সাথেই উত্তর পেয়ে যাবে। যার ফলে তাঁরা নিশ্চিত হবে যে, আপনি একজন আস্থাভাজন লোক যার সাথে লেনদেন করা যায়।

২। উকমারস আল্টিমেট গিফট কার্ডস

Woocommerce Ultimate Gift Cards
উকমারস আল্টিমেট গিফট কার্ডস

এই এক্সটেনশনটি দিয়ে আপনি আপনার স্টোরে গিফট কার্ড বিক্রি করতে পারবেন। এটা কেবল আপনার গ্রাহকরা তাঁদের প্রিয়জনকে গিফট কার্ড কিনে গিফট দিতেই ব্যবহার করবে না, সেই সাথে আপনি আপনার ফিরে আসা গ্রাহকদেরকে ছাড় দিতে এবং নতুন গ্রাহকদেরকে গ্রাহক হতে আকৃষ্ট করার জন্যও কিছু মূল্যছাড়ের জন্যও ব্যবহার করতে পারবেন।  

৩। ইম্প্রুভড প্রোডাক্ট অপশনস ফর উকমারস

Improved Product Options for WooCommerce
ইম্প্রুভড প্রোডাক্ট অপশনস ফর উকমারস

ইম্প্রুভড প্রোডাক্ট অপশনস ফর উকমারস দিয়ে আপনি আপনার পণ্যের জন্য পছন্দমত কাস্টম অপশন বেছে নিতে পারবেন এবং প্রোডাক্ট অপশন থেকে অসংখ্য এট্রিবিঊট সিলেক্টর তৈরি করতে পারবেন যা বিভিন্ন রং, সাইজ এবং উপাদানের হতে পারে।

৪। প্রোডাক্ট ফিল্টার ফর উকমারস

Product Filter for WooCommerce
প্রোডাক্ট ফিল্টার ফর উকমারস

এই এসইও বান্ধব প্লাগিনটিকে বিশেষ ধন্যবাদ। কারণ এটা দিয়ে আপনার গ্রাহকরা ক্যাটাগরি, এট্রিবিউট, টেক্সিমনি, রেঞ্জ, মেটা কী সহ আরও অনেক কিছু দিয়ে ফিল্টার করে তাঁদের সঠিক পণ্যটি খুঁজে বের করতে পারবে।

৫। উকমারস রিফান্ড এন্ড এক্সচেঞ্জ

Woocommerce Refund and Exchange
উকমারস রিফান্ড এন্ড এক্সচেঞ্জ

রিফান্ড ইস্যু করা বেশ কষ্টকর, যতক্ষন না আপনি এই এক্সটেনশনটি পাবেন। আপনি এই সম্পূর্ণ প্রক্রিয়াটি অটোমেট করতে পারেন যাতে আপনার গ্রাহকরা রিফান্ড অথবা এক্সচেঞ্জের অনুরোধ জমা দিতে পারে যা আপনি মেইলের জানতে পাবেন। এরপর আপনি এখান থেকে আইটেম রিফান্ড অথবা এক্সচেঞ্জ ইস্যু করতে পারবেন এবং আপনার অর্ডার দরকার অনুযায়ী সমন্বিত করে নিতে পারবেন।

আপনার নিজস্ব অনলাইন স্টোর শুরু করুন

অনলাইন স্টোর শুরু করা একটি আকর্ষণীয় ও সম্ভাবনাময় ব্যবসায়িক মডেল। এখন তো আপনি জানলেন কিভাবে উকমারস এবং উকমারসের জন্য তৈরি করা থিম ও অসংখ্য উকমারস এক্সটেনশন ব্যবহার করে মাত্র কয়েক ঘন্টার মধ্যেই একটি ইকমারস ওয়েবসাইট তৈরি ও চালু করা যায়।  এই থিম সিলেকশন থেকে ব্রাউজ করে আপনার পছন্দের থিম বেছে নিন এবং আজই আপনার অনলাইন স্টোর তৈরি করুন।

Advertisement
Advertisement
Looking for something to help kick start your next project?
Envato Market has a range of items for sale to help get you started.