Unlimited Powerpoint templates, graphics, videos & courses! Unlimited asset downloads! From $16.50/m
Advertisement
  1. Business
  2. Freelance
Business

সঠিক পারিশ্রমিক

by
Length:ShortLanguages:

Bengali (বাংলা) translation by Shakila Humaira (you can also view the original English article)

(লক্ষ্য করুন, এই রচনায় উল্লিখিত অঙ্ক কেবলমাত্র উদাহরণের জন্য, আপনাকে অবশ্যই আপনার শিল্প, দেশ, দক্ষতা এবং অন্যান্য অবস্থার প্রেক্ষিতে আপনার কাজের মূল্য নির্ধারণ করতে হবে)

আপনার সেবার মূল্য অত্যাধিক বেশি হলে, আপনি গ্রাহক হারাবেন। আবার একেবারে কম মূল্যের কারণে, আপনি আপনার প্রজেক্টের ব্যাপারে আগ্রহ হারাবেন, যার ফলে পরিনামে আপনার জন্য তা নেতিবাচক ফলাফল বয়ে আনবে। তাহলে একটা ফ্রিল্যান্স প্রজেক্ট মূল্যায়নের সর্বোত্তম উপায় কি হতে পারে, যাতে একই সাথে আপনার এবং আপনার ক্লায়েণ্ট উভয়ই সন্তুষ্ট থাকে?

আপনার সর্বনিন্ম সীমারেখা

শুরুতে, আপনি ঘণ্টায় নুন্যতম কি পরিমাণ অর্থ আয় করতে চান তা নির্ধারণ করবেন।  ঘণ্টা প্রতি ফি হিসেবে আপনি নূন্যতম কি পরিমাণ অর্থ আয় করতে চান? কোনও লাভ ছাড়াই আপনার আনুষঙ্গিক খরচ মেটাতে নূন্যতম কি পরিমাণ অর্থ প্রয়োজন হবে? এই পরিমাণ অর্থ হচ্ছে আপনার নুন্যতম আর্থিক সীমারেখা। যখন আপনি আপনার আয়ের নূন্যতম সীমারেখা নির্ধারণ করবেন এবং বুঝতে শুরু করবেন যে, এর চেয়ে কম আয় করা আসলে খারাপ এবং অলাভজনক, এর ফলে আপনি খুব সহজেই নির্ধারণ করতে পারবেন যে কি পরিমাণ লাভ করতে চান। ফলাফল হিসেবে, এটি আপনার উদ্যোগের জন্য আর্থিক সম্ভাবনা নিশ্চিত করবে, এবং আপনাকে বর্তমান বাজারদর অনুযায়ী আরও প্রতিযোগীতামূলক ভাবে মূল্য নির্ধারণ করতে সাহায্য করবে।

সব কিছুর পর, একটি সীমারেখা নির্ধারণ করা হচ্ছে, নিজের প্রতি সুবিচার করা। আপনি যদি কোনও গ্রাহককে চার্জ করার ক্ষেত্রে কোনও অবাস্তব অঙ্ক চেয়ে বসেন, তাহলে কেবলমাত্র নিজেকেই যেন বোকা বানালেন এবং এটা করে অবশেষে আপনি নিজেরই ক্ষতি করবেন।

তাই, কাজ শুরু করার আগে অবশ্যই আপনার নূন্যতম সীমারেখা বের করুন, যার থেকে কম হলে, আপনার ব্যবসা টিকিয়ে রাখতে পারবেন না। এটা কিছুটা অনুমানের উপর নির্ভরশীল, কিন্তু আয়সীমা নির্ধারণ করার সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে সপ্তাহে নূন্যতম কত ঘণ্টা আপনি কাজ করতে পারবেন তা বের করা এবং বেঁচে থাকার জন্য আপনার কি পরিমাণ টাকা দরকার তা বের করা এবং ঘণ্টার অঙ্ক দিয়ে টাকার অঙ্ক ভাগ করা। উদাহরণস্বরূপ, যদি আপনাকে মাসে $৬০০ ভাড়া বাবদ ও অন্যান্য খরচ বাবদ ব্যয় করতে হয় এবং আপনি যদি সপ্তাহে ২০ ঘণ্টা কাজ করতে পারেন, তাহলে আপনার ঘণ্টাপ্রতি নূন্যতম সীমারেখা হচ্ছে $৬০০/২০= $৩০/প্রতিঘন্টা। যখন আপনার নুন্যতম সীমারেখা হিসাব করবেন, তখন অবশ্যই ছুটির দিন, অসুস্থতার সময়, এবং হয়তোবা কোনও সপ্তাহে আপনার কাজ থাকবে না, এসব বিষয়াদি অবশ্যই মাথায় রাখবেন।

এখন নিশ্চয়ই আপনি আপনার নুন্যতম সীমারেখা বের করতে পারছেন। আপনার লক্ষ্য থাকবে যাতে প্রতিমাসে কোনোভাবেই আয়সীমা এর নিচে না যায়, বরং এরচেয়েও কিছু বেশি আয় করতে সচেষ্ট হওয়া উচিৎ।

মুনাফা

Turning a profit

মুনাফা মানে এই নয় যে আপনার গ্রাহকের কাছ থেকে মাত্রাতিরিক্ত আয় করবেন।  মুনাফা হচ্ছে পুরস্কারের মত, কারণ আপনার গ্রাহক আপনার এই পরিষেবার কারণেই লাভবান হচ্ছেন। এছাড়াও, আপনার সেবার মান অন্যদের চেয়ে আলাদা হতে পারে। যেমন আপনার গ্রাহক সেবা অন্যদের চেয়ে ভালো হতে পারে, আপনি অন্য কারো থেকে দ্রুতগতিতে কাজ করতে পারেন। অথবা আপনার বানানো পণ্যটি আপনার প্রতিযোগীদের চেয়ে ভালো মানের হতে পারে।

মুনাফা হচ্ছে আপনার নুন্যতম আয়সীমার উপর কয়েক শতাংশ বেশী আয়। মুনাফা যে কোনও অংকের হতে পারে, কিন্তু আপনাকে এটা ন্যায়সঙ্গতভাবে নির্ধারণ করতে হবে, যাতে বাস্তবসম্মত হয়। আপনি চাইলে নুন্যতম আয়সীমার চেয়ে ১০০% বেশী লাভ করারও চেষ্টা করতে পারেন, কিন্তু কোনও ফ্রিল্যান্সার যদি এই ধরণের মূল্য নির্ধারণ করতে যায়, তবে তা দীর্ঘমেয়াদে লাভজনক হওয়ার সম্ভাবনা কম

উদাহরণস্বরূপ, একজন ফ্রিল্যান্সার তাঁর সেবার জন্য ১০০% লাভ করতে অতি উচ্চ মূল্য নির্ধারণ করতে পারে। কিন্তু এর ফলে সে নির্দিষ্ট সময়ে খুব কম পরিমাণ কাজের অফার পেতে পারে। অপরদিকে, যেই ফ্রিল্যান্সার একটি বাস্তবসম্মত মূল্য নির্ধারণ করে, সে সম্ভবত তুলনামূলক বেশী কাজের অফার পাবে, যা দীর্ঘমেয়াদে বেশ লাভজনক। দুর্ভাগ্যবশত, এখানে কোনও নির্দিষ্ট অঙ্ক নেই এবং আপনাকেই আপনার জন্য সঠিক পারিশ্রমিক কি পরিমাণ হবে তা বের করতে হবে।

ফ্রিল্যান্সার হিসেবে আপনি এবং আপনার সেবা কতটা অনন্য তা সব সময়ই মাথায় রাখুন। ইউনিক হতে হলে আপনার ক্ষেত্রে আপনাকে শীর্ষ ৩% এর মধ্যেই যে থাকতে হবে এমন নয়-আপনার কাজের ইতিবাচক দিক হতে পারে আপনার গ্রাহক সেবা, অথবা আপনি অন্যদের তুলনায় কত দ্রুত প্রজেক্ট জমা দিতে পারেন সে বিষয়টি। এই ধরণের অনন্য সেবার ক্ষেত্রে আপনি আপনার লভ্যাংশ কিছুটা বাড়াতে পারেন, যা সম্ভবত অন্যরা প্রদান করে না।

ঠিক কতদিন লাগবে এই প্রজেক্টটি সম্পন্ন করতে?

আমাদের ফর্মুলায় যুক্ত করার জন্য চূড়ান্ত উপাদান হচ্ছে একটি প্রজেক্ট শেষ করতে ঠিক কত ঘন্টা লাগবে তাঁর সঠিক হিসাব। একটি প্রজেক্ট সম্পন্ন করতে কতদিন লাগবে তা অনুমান করার চাবিকাঠি হচ্ছে আপনার ক্লায়েন্টের সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় বিষয়াদির একটি ডকুমেন্ট তৈরি করা। প্রয়োজনীয় বিষয়াদির ডকুমেন্ট কেবল একজন গ্রাহক কি চান তার বিবরণই নয়, সেই সাথেএকজন ফ্রিল্যান্সারকে প্রয়োজনীয় বিষয়াদি জানতে এবং সে অনুযায়ী নিয়ম ও বিধি-বিধানতৈরি করতে সাহায্য করে। অন্য কথায়, এটা হচ্ছে কাজের একটি কাঠামোবদ্ধ বিবরণ।

প্রয়োজনীয় বিষয়াদির ডকুমেন্টে একজন গ্রাহককে পরিষ্কারভাবে উল্লেখ করতে হবে যে তিনি কি কি কাজ চান এবং একজন ফ্রিল্যান্সার এই বিষয়গুলোর উপর ভিত্তিকরেই পারিশ্রমিক নির্ধারণ করবেন।  যদি গ্রাহক কখনও প্রয়োজনীয় বিষয়াদির পরিবর্তন ঘটান অথবা অতিরিক্ত কাজের জন্য বলেন যা এই ডকুমেন্টে নেই, তাহলে একজন ফ্রিল্যান্সার অতিরিক্ত কাজের জন্য সেকেন্ডারি ফি চার্জ করার পূর্ণ অধিকার রাখেন।

প্রয়োজনীয় বিষয়াদির নথিটি কেবল কোনও প্রকল্প সম্পূর্ণ করার জন্য কি পরিমাণ সময় লাগবে তা নির্ণয় করতেই সাহায্য করবে না, সেই সাথে আপনার গ্রাহক যদি কখনও ইচ্ছাকৃত বা অনিচ্ছাকৃতভাবে মূল বিষয়াদী পরিবর্তন করতে চান সে ক্ষেত্রে বিমার মত কাজ করবে।  এটাকে অনেকটা সুযোগের সদ্ব্যবহার বলা হয়, এবং একজন ফ্রিল্যান্সার হিসেবে আপনাকে এ বিষয়ে সম্পূর্ণ সজাগ থাকতে হবে। অনেক সময় এই ধরণের সুযোগ নেয়ার ফল ব্যাক্তিগত এবং আর্থিকভাবে ক্ষতির কারণ হয়ে থাকে।

তাই প্রয়োজনীয় বিষয়াদির একটি ডকুমেন্ট আপনার কাছে থাকলে আপনি সঠিকভাবে হিসাব করতে পারবেন যে এই প্রজেক্টটি সম্পূর্ণ করতে আপনার কি পরিমাণ সময় লাগবে। আগে থেকেই সম্পূর্ণ প্রজেক্টটি বিস্তারিতভাবে জানা থাকলে, পরবর্তীতে এটা সম্পূর্ণ করতে কি পরিমাণ সময় লাগবে, সে সম্পর্কে ভবিষ্যৎবাণী করতে আপনাকে সাহায্য করবে। 

এখন আপনি আপনার কাজের ঘণ্টাপ্রতি নুন্যতম আয়সীমা পেলেন, এখন আপনার লভ্যাংশ এবং কাজটি সম্পন্ন করতে কি পরিমাণ সময় লাগবে তা নিরূপণ করার পালা।

বাস্তব মুহূর্ত... জাদুকরী ফর্মুলা!

(ঘণ্টাপ্রতি আয়সীমা + লভ্যাংশ) x কাজটি করতে কি পরিমাণ সময় লাগবে = সঠিক পারিশ্রমিক!

আগের উদাহরণ অনুযায়ী, ধরুন আমাদের ঘন্টাপ্রতি আয়সীমা হচ্ছে ঘণ্টাপ্রতি $৩০ এবং লভ্যাংশ হচ্ছে ৫০% = ঘণ্টাপ্রতি $১৫, এবং আপনার প্রজেক্টটি সম্পন্ন করতে মোট ১০০ ঘণ্টা লাগবে। তাহলে এই কাজের সঠিক পারিশ্রমিক হবে: $৩০ + $১৫ = $৪৫ x ১০০ ঘণ্টা = $৪৫০০।

একটু থামুন, এটা খুবই সঠিক মনে হচ্ছে, তাই না? ভুল। এমন অনেক ফ্রিল্যান্সার আছে, তাঁরা লেখক, ডিজাইনার, প্রোগ্রামার অথবা গায়ক যাই হোক না কেন, কাজের পারিশ্রমিক নির্ধারণের বেলায় সঠিক ব্যবসায়িক নীতি প্রণয়নের ক্ষেত্রে সর্বদাই ব্যর্থ হয়ে থাকে।

এগুলো প্রায়ই ঘটে, বিশেষ করে যারা নতুন ফ্রিল্যান্সার, তাঁদের একটি প্রবণতাই থাকে কোনও প্রজেক্টের জন্য কম মূল্য নির্ধারণ করা, হতে পারে তাঁদের কাজের মূল্য সম্পর্কে কোনও ধারণাই নেই, অথবা তাঁরা হয়তোবা সম্ভাব্য প্রতিযোগীদের বিষয়ে উদ্বিগ্ন এবং মনে করে সবচেয়ে কম মূল্যই সেরা মূল্য (এই ধারণা সত্যি নয় এবং নতুন ফ্রিল্যান্সারদের মধ্যে এটি একটি সাধারণ ভুল...), কিন্তু আসলে তা নয়। এটা এ কারণে হয় যে, তারা তাঁদের নূন্যতম আয়সীমা নিরূপণ করতে পারে না, কি পরিমাণ লাভ করবে এবং প্রজেক্টটি সম্পন্ন করতে কত ঘণ্টা লাগবে এসব কিছুই জানে না।

তাহলে, এখন তো আপনি জানলেন। আপনার নিজস্ব আয়সীমা এবং লভ্যাংশ নির্ধারণ করুন এবং কোনও চুক্তি/কাজের জন্য এর নিচে কখনোই কাজের অফার গ্রহণ করবেন না – এটা খারাপ এবং নিজের জন্য ক্ষতিকর অভ্যাস যা ফ্রিল্যান্সারদেরকে যেকোনো মূল্যে এড়িয়ে চলা উচিৎ। এই সাধারণ বিষয়গুলো মেনে চলুন, তাহলে আপনার মূল্য সবসময়ই সঠিক থাকবে!

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Looking for something to help kick start your next project?
Envato Market has a range of items for sale to help get you started.