Students Save 30%! Learn & create with unlimited courses & creative assets Students Save 30%! Save Now
Advertisement
  1. Business
  2. Money
Business

কিভাবে ঋণগ্রস্ত ক্ষুদ্র ব্যবসা উদ্ধার করবেন

by
Difficulty:BeginnerLength:LongLanguages:

Bengali (বাংলা) translation by Arnab Wahid (you can also view the original English article)

আগের টিউটোরিয়ালে আমরা দেখেছি কিভাবে ঋণ নিয়ে ব্যবসায় বিনিয়োগ করা যায়। ঠিকমত করলে, ব্যবসার প্রসার করার জন্য এটা একটা পাওয়ারফুল উপায়।

কিন্তু, আমরা সকলেই জানি ঋণ করা একটা বিপদজনক ব্যাপার। ব্যবসা মুনাফা না করলে, ঋণের বোঝা বেড়েই যাবে, ব্যবসা তা থেকে উদ্ধার করতে পারবেন না।

এই টিউটোরিয়াল তাদের জন্য, যাদের ব্যবসা প্রকট ঋণগ্রস্ত অবস্থায় রয়েছে। আমরা এখানে কিছু বেসিক স্টেপ দেখব যেগুলো আপনি নিতে পারেন। এখানে আপনি শিখবেন কিভাবে দ্রুত ঋণশোধ করে ব্যবসা উদ্ধার করা সম্ভব। চলেন শুরু করি।

১. এক্সট্রা মুনাফা করা

অনেক সময় ঋণ শোধ করা কঠিন হলেও, অনেক সময় আবার অনেক সহজই। ফিক্সড বেতনের ব্যবসায় কস্ট কাটিং করে খরচ কমানো সম্ভব। আর ব্যবসা হিসেবে, আপনি আপনার মুনাফা বৃদ্ধিতেও মনোযোগ দিতে পারেন।

সেল বাড়ানোর জন্য লো কস্ট প্রোমোশন ও ডিসকাউন্ট অফার করতে পারেন। কোম্পানি এসেট যা কাজে লাগেনা, তা সেল করে সে ক্যাশ দিয়ে ঋণ শোধ করতে পারেন। স্টকে অনেক প্রোডাক্ট থাকলে, ডিসকাউন্ট বা স্পেশাল সেলে সেগুলো সেল করে আটক টাকা ক্যাশ করে ঋণ শোধ করা সম্ভব।

এগুলো সামান্য কিছু আইডিয়া। এছাড়াও লং টার্ম সলিউশনও আছেম যেমন কন্টেন্ট মার্কেটিং, এফিলিয়েট মার্কেটিং, রেফারাল ইত্যাদি। বিস্তারিত জানতে টুটসপ্লাসের মার্কেটিং টিউটোরিয়ালগুলো দেখুনঃ

২. বকেয়া পাওনা আদায়

যদি আপনার ব্যবসা বাকিতে অনেক কাজ করে থাকে ক্লায়েন্টদের সাথে, তাহলে বাকি আদায় করা শুরু করুন। যেমন ডিজাইন ফার্মের কাজ ডেলিভারি দেয়ার পরে হয়ত পেমেন্ট পেতে এক মাস দেরি হতে পারে।

এইসব সিচুয়েশন সমস্যাজনক, তবে এটা দিয়ে ঋণ শোধ করার একটা উপায় বের হতে পারে। বকেয়া পেমেন্টের একটা লিস্ট তৈরি করুন, এরপর একে একে বকেয়া আদায় শুরু করুন। যদিও কিছু কাস্টমার কিছু বকেয়া ক্লিয়ার করবে না, কিন্তু অন্যরা সামান্য চাপ দিলেও ক্লিয়ার করে দিবে।

ফিউচারে বকেয়া বিল এড়ানো জন্য এই টিউটোরিয়ালের টিপগুলো ফলো করতে পারেনঃ

এই টিউটোরিয়ালে আলোচনা করা হয়েছে, কিভাবে সময় মত পেমেন্ট আদায় করা যায়ঃ

৩. কস্ট কাটিং

এখন যখন আপনার ক্যাশ ফ্লো বৃদ্ধি পেয়েছে, এবার কস্ট কাটিং এ মনোযোগ দিতে হবে।

Cut Small Business Expenses
এই স্টেপটা একটু জটিল।

সব খরচই এক কালে জাস্টিফাই করা হয়েছে, হঠাত করে সেটা বাদ দিতে ইচ্ছা করেনা। কিন্তু আপনি যখন এই আর্টিকেল পড়ছেন, তার মানে হচ্ছে আপনার ব্যাবসায় ক্রাইসিস শুরু হয়ে গেছে।

এখন কিছু শক্ত সিদ্ধান্ত নিতে হবে, নইলে বিজনেস টিকবে না। ছোট ছোট এক্সপেন্স কাটা সহজ, কিন্তু ইফেক্টিভ নাই। এর চেয়ে বড় একটা কস্ট কাট অনেক বেশি ফলপ্রসু হবে।

কস্ট কাটিং এর মত কস্ট ডিলেও করতে পারেন। আগে আমরা দেখেছি পেমেন্ট ডিলে কিভাবে হয়।

একই ভাবে, আপনি নিজের ডিউ বিল ডিলে করতে পারেন। যদি আপনার কোন বিল ৩০ দিনে শোধ করতে হয়, তাহলে ৩০ দিনই সময় নিন। তাহলে মাসের কোন অযাচিত ঘটনা ঘটলে সেটা সামলাতে টাকা আপনার হাতে সারামাস থাকবে।

একটা বিলের ক্ষেত্রে হয়ত এই আইডিয়ায় তেমন কিছু হবেনা। কিন্তু আপনার যদি অনেক বিজনেস এক্সপেন্স বিল থাকে মাসে মাসে, তবে এই আইডিয়া অনেক কাজে আসবে। এক্সেন্স ম্যানেজমেন্টে সুবিধা হবে। মাসের শুরুতে যদি কিস্তি শোধ করে অতিরিক্ত সুদ এড়ানো যায়, তাহলে এই পদ্ধতি ব্যবহার সার্থক হবে।

কিন্তু ডেডলাইনের করে ডিলে করবেন না। এতে করে অন্যদের সাথে আপনার ব্যবসায়ীক সম্পর্ক নষ্ট হবে।

৪. এসেট সেল করা

 ডিজিটাল বিজনেসে এসেট কম থাকে। কিন্তু তবুও, সব বিজনেসেই কিছু না কিছু এসেট থাকে। যেমন, কম্পিউটার বা গাড়ি, যেটা বিজনেস ইউজের জন্য। বা কোন রকমেরর মেটিরিয়াল।

এই সব কোম্পানির ব্যালেন্স শিটে লিস্ট করা থাকে। এই সব এসেটে ব্যবসার টাকা বাঁধা থাকে। এটা ক্যাশে রুপান্তর করে ঋণশোধ করা সম্ভব।

অনেক এসেটই বিজনেসের জন্য এসেনশিয়াল। ক্রিটিক্যাল এসেট লিকুইফাই করার দরকার নেই। না দরকার নেই, বা না থাকলেও চলে সেগুলো লিস্ট করুন। এরপর ওই লিস্ট ফলো করে একে একে সেল করুন।

বা বিজনেসের জন্য এসেট না কিনে অন্য কিছু করতে পারেন। যেমন লিজ বা ভাড়ায় নিয়ে ব্যবহার করা। তবে এতে সমস্যা হচ্ছে জে এখন থেকে আপনার রেগুলার সেটার ভাড়া দিতে হবে।

আপনি যদি না জানেন কিভাবে ব্যালেন্স শিট পড়তে হয় তাহলে এইটা পড়ে দেখুনঃ

৫. ঋণ পরিশোধ করাকে সর্বোচ্চ প্রায়োরিটি হিসাবে নিন

ওকে, কিছু এক্সট্রা টাকা আসছে, সেটাকে কিভাবে খরচ করবেন?

সবার আগে ক্রিটিক্যাল খরচগুলো শেষ করুন, ব্যবসার দেনা আরও যেন না বাড়ে।

আগামী দুই তিন মাসের ব্যবসার ক্যাশ ফ্লো হিসাব করুন। কিভাবে করতে হয় জানতে পড়ুনঃ

যদি তার পড়ে হাতে এক্সট্রা টাকা থাকে, তবে সেটা দিয়ে দেনা শোধ করুন বা কমান।

পার্সোনাল লোনের চেয়ে বিজনেস লোন একটু অন্য রকম।

আগে দেখুন সেটা আপনার বিজনেস রিলেশনে কেমন প্রভাব ফেলে। আগে কর্মচারিদের বেতন ও বিল শোধ করুন। ওইটা যেন কোনভাবেই দেরি না হয়।

এরপর সাপ্লাইয়ারদের পাওনা বুঝিয়ে দিন। তৎক্ষণাৎ যদি করতে না হয়, তবে আগে যেমন আলোচনা করেছি, তেমন ডিলে করতে পারেন। কিন্তু সেই ডিলে যেন ডেডলাইন ওভার করে না যায়। এরপর অন্যান্য বকেয়া বিল শোধ করে নিন।

ব্যবসার রেপুটেশন যেন ক্ষুণ্ণ না হয়, তাই এইসব কাজ আগে করে নিতে হবে। তাই ঋণ শোধের মত এগুলাও প্রায়োরিটি দিতে হবে।

এরপর, সবার আগে ওইসব ঋণ শোধ করুন, যেটা শোধ না করলে ব্যবসায় জটিলতা বাড়বে। যেমন, ট্যাক্স সময়মত ক্লিয়ার করা। বা যে লোনে কোন মর্টগেজ বা গ্যারান্টেটর জড়িত সেটা আগে শোধ করা।

এরপর, হায়ার ইন্টারেস্ট রেটের লোনগুলো শোধ করতে হবে। ওটার পেমেন্ট শেষ করে, যদি অতিরিক্ত টাকা থাকে, তবে অন্য কম ইন্টারেস্টের লোনে অল্প কিছু কিস্তি শোধ করতে পারেন। এটা শেষ হলে, লিস্টের পরবর্তী কাজে যান।

বিশেষজ্ঞদের মতে, ছোট এমাউন্টের লোন আগে শোধ করে ফেলা উচিৎ। এতে করে আপনি দ্রুত আপনার প্রগ্রেস দেখতে পারবেন, আর আপনার প্রেশার কমবে।

৬. ক্রেডিটরদের সাথে যোগাযোগ

অনেক কালচারে ঋণ ভালো চোখে দেখা হয়না। তাই অনেক সময় অনেকে স্বীকার করে না যে তাদের ব্যবসা ঋণগ্রস্ত।

আর বিজনেস ইমেজও একই সমস্যা দেখা যায়। ঋণ এর কথায় বিজনেসের সাকসেস আছে কি না তা প্রশ্নের সম্মুখীন হয়।

কিন্তু এই ব্যাপার গোপন রাখা কাউন্টার প্রোডাক্টিভ। এর চেয়ে এই সিচুয়েশন ইমপ্রুভ করায় মন দেয়া উচিৎ।

এই ব্যাপারে ক্রেডিটরদের সাহায্য নেয়া যেতে পারে। ধরেন, ব্যাংকে আপনার লোন ১০ লাখ। ব্যাংক চায় না আপনার ব্যবসা ডুবে যাক, তাহলে তারা তাদের ১০ লাখ হারাবে। এই ক্ষেত্রে তারা পেমেন্টের সময়সীমা বাড়াতে রাজি হবে, এমনকি ঋণ আংশিক মওকুফও করতে রাজি হবে। কারণ তাদের কাছে কিছুও না পাওয়ার চেয়ে সামান্য কিছু পাওয়া ভালো অপশন।

তাই ক্রেডিটরদের সাথে মিটিং ফিক্স করুন, দেখুন তারা টার্ম আপডেট করে আপনাকে কিছু সুবিধা দিতে রাজি কিনা। তারা রাজি নাও হতে পারে, কিন্তু হলে আপনার প্রেশার অনেক কমে যাবে, তাই ট্রাই করে দেখুন।

৭. পরিবার ও বন্ধুবান্ধব

ঋণ নাওয়া কখনই ভালো বুদ্ধি না। কিন্তু হাই ইন্টারেস্ট ব্যাংক লোন নাওয়ার চাইতে জিরো বা লো ইন্টারেস্ট লোন পরিচিত কারো থেকে নাওয়া বেটার অপশন।

কিন্তু এতে বন্ধুত্ব বা পারিবারিক সম্পর্ক নষ্ট হওয়ার ঝুঁকি থাকে। তাই এই লোনকেও প্রফেশনাল লোন হিসেবে ট্রিট করুন। আর লোনের টার্মস ও কন্ট্রাক্ট মেনে চলুন। যদিও এই লোনে ব্যাংক লোনের চেয়ে প্রেশার কম, তবুও এটার কিস্তি সময় মত পরিশোধ করুন।

লোনের ব্যপারে বিস্তারিত জানতেঃ

৮. লোন ক্লিয়ার করার জন্য লোন নেয়া

ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ঋণ শোধ করার জন্য ঋণ নিতে পারে। ১ ০ জায়গায় ঋণ থাকার চেয়ে, এক জায়গায় থাকা ভালো, তাই একটা লোন নিয়ে অন্য ১০ জনেরটা একেবারে শোধ করে দেয়া।

কিন্তু এই কাজ সাবধানে করতে হবে। অনেক ব্যাংক এই লোন নিয়ে ভাওতাবাজি করে। লোনের টার্মস ভালো না হলে, সেটা নেয়ার চিন্তা বাদ দিতে পারেন।

নইলে দেখা যাবে যেটা নিজে নিজেই করতে পারতেন, সেটার জন্য এখন ব্যাংককে চড়া সুদ দিতে হচ্ছে। তাই রিসার্চ করুন, যেটা ভালো মনে হয় সেটা ট্রাই করুন।

৯. সেকেন্ড জব

ব্যবসায় সমস্যার সময় দুশ্চিন্তায় অন্য কিছুই মাথায় আসেনা। কিন্তু ঋণ শোধ করা অতি জরুরী হলে, নিজের স্কিল কাজে লাগিয়ে, ফ্রিল্যান্সিং করে এক্সট্রা টাকা ইনকাম করে ঋণ শোধ করা সম্ভব।

ধরেন, আপনি একজন ওয়েব ডিজাইনার। আপনি ওয়েব ডিজাইন করে দিয়ে এক্সট্রা টাকা কামাতে পারেন। অথবা আপনি এনভাটো মার্কেটে ওয়ার্ডপ্রেস থিম সেল করে ইনকাম করতে পারেন।

ব্যবসার পাশাপাশি ফুলটাইম জব করা সম্ভব হবেনা। তাই সেটা নিয়ে আমরা আলোচনা করছিনা।

পরিশেষ

ঋণ অতিরিক্ত বোঝার মত। এই টিউটোরিয়ালে আমরা দেখলাম ঋণ মুক্ত হওয়ার বিভিন্ন উপায়। ক্ষুদ্র ব্যবসার জন্য ঋণ সমস্যাজনক হলেও, এর সুরাহা আছে।

আমরা দেখেছি কিভাবে ঋণ শোধ করা যায়। আর এক্সট্রা রেভেনিউ কিভাবে জেনারেট করতে হয়, সেই স্ট্র্যাটেজিও শিখলেন।

কিন্তু, সমস্যা সমাধানের পরে, অডিট করে দেখুন কিভাবে ব্যবসা এই সমস্যায় পরেছিল। সেই সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করুন। প্রবমেলে পড়লে টুটসপ্লাসের আর্টিকেল ও টিউটোরিয়ালের সাহায্য নিন। কিভাবে অডিট করতে হয় জানতে আমাদের অন্যান্য টিউটোরিয়াল পড়ে দেখুনঃ

এই পরিস্থিতিতে আবার যেন পড়তে না হয়, তার প্রস্তুতি নিন। ভবিষ্যতে আরও ভালো ভাবে ব্যবসা চালানোর স্ট্র্যাটেজি তৈরি করুন।

Advertisement
Advertisement
Looking for something to help kick start your next project?
Envato Market has a range of items for sale to help get you started.